অল্প টাকায় লাভজনক পাইকারি ব্যবসার আইডিয়া জেনে নিন

অল্প টাকায় লাভজনক পাইকারি ব্যবসার আইডিয়া জেনে নিন

পাইকারি ব্যবসার আইডিয়া

অল্প টাকায় লাভজনক পাইকারি ব্যবসার আইডিয়া জেনে নিন, পাইকারি ব্যবসায়িক ধারণা আসলে সবচেয়ে লাভজনক ব্যবসায়িক ধারণা, পাইকারি ব্যবসায় করার সুবিধাটি হ’ল এই ব্যবসায়টি বেশি লাভজনক। যদিও বিনিয়োগের আরও কিছু আছে। সাধারণত যাদের বেশি মূলধন থাকে তারা পাইকারের ব্যবসা শুরু করতে পারেন। পাইকারি ব্যবসা করে খুব দ্রুত ব্যবসা সম্প্রসারণ করা সম্ভব। আপনার যদি বেশি মূলধন থাকে এবং আপনার নিজের ট্রাক বা যানবাহন থাকে তবে পাইকারি ব্যবসা করে কোটিপতি হওয়া সম্ভব। আজকের নিবন্ধে, বাংলাদেশের বর্তমান পাইকারি বাজার পরীক্ষা করে কিছু পাইকারি ব্যবসার আইডিয়া তুলে ধরা হয়েছে। আপাতত, এখানে কিছু লাভজনক পাইকারি ব্যবসায়িক ধারণা দেওয়া হয়েছে যা প্রত্যেকেই করতে পারে:

১. পাইকারি পোশাক ব্যবসা: 

ঢাকার ইসলামপুর পানীয় কাপড়ের বাজারের জন্য বিখ্যাত। একবার আপনি ইসলামপুরে গেলে আপনি বুঝতে পারবেন তারা কোথা থেকে কাপড় কিনেছিল। মূলত পোশাক কয়েক ধাপে পাইকারদের কাছে আসে। সেখান থেকে তারা পাইকারি দামে পোশাক বিক্রি করে। তবে আপনাকে প্রথমে সিদ্ধান্ত নিতে হবে আপনি কোন ধরণের ফ্যাব্রিকের সাথে বাণিজ্য করতে চান। এটি ইয়ার্ড কাপড়, থ্রি পিস, শাড়ি, লুঙ্গি ইত্যাদি হতে পারে আপনি যে পোশাকের সাথে ব্যবসা করেন। প্রথমে ফ্যাব্রিকের আসল উত্সটি সন্ধান করুন। উদাহরণস্বরূপ, আপনি জামদানির জন্য নারায়ণগঞ্জ সন্ধান করতে পারেন। আর আপনি যদি ইসলামপুর বা পাইকারি বাজারে ব্যবসা করেন। এই ব্যবসাটি আপনার পক্ষে সহজ হবে।

২. কাঁচামাল পাইকারি ব্যবসায়:

সাধারণত যারা কারওয়ান বাজার বা শ্যামবাজারে পাইকারি ব্যবসা করেন। তারা কৃষকের কাছ থেকে পণ্য নিয়ে আসে না। তাদের আর একটি অংশ রয়েছে যা কৃষক বা স্টোরকিপারের কাছ থেকে ট্রাক নিয়ে পণ্য নিয়ে আসে। এটি তখন পাইকারদের কাছে বিক্রি করে। এখন আপনি যদি এই জায়গাগুলিতে পাইকারি ব্যবসা করতে চান তবে আপনাকে কাঁচামাল সংগ্রহ করতে বিরক্ত করতে হবে না।

৩. মুদি পাইকারি ব্যবসায়:

মুদি সামগ্রীর পাইকারি ব্যবসা করার সবচেয়ে সহজ উপায় হ’ল যে কোনও পণ্যের ডিলারশিপ নেওয়া। এছাড়া আপনি চাইলেই চালের পাইকারি ব্যবসা করতে পারবেন। আবার, আপনি মশলা, তেল বা অন্যান্য পণ্য তৈরি করতে পারেন। মুদি দোকান আইটেমের তালিকা এই নিবন্ধটি পড়ে আপনি সমস্ত মুদি দোকান পণ্য সম্পর্কে একটি ধারণা পাবেন।

৪. চালের পাইকারি ব্যবসায়:

ধানের পাইকারি ব্যবসায়ের জন্য বিখ্যাত বাবুবাজার। আসুন, আমি জানি তারা কীভাবে পাইকারি ব্যবসা করে। পাইকার বা চালের গুদামজাতকারী এজেন্টরা তাদের নিজস্ব প্রতিনিধি বিভিন্ন জেলায় প্রেরণ করেন। তারা ট্রাক দিয়ে মালামালটি পাইকারদের কাছে নিয়ে আসে। সেক্ষেত্রে পাইকারকে বস্তা, গাড়ি ভাড়া, শ্রম মজুরি বহন করতে হয়।

৫. টি-শার্ট পাইকারি ব্যবসায়:

টি-শার্টের পাইকারি ব্যবসায় সহজ। আপনি চাইলে অল্প মূলধন নিয়ে টি-শার্টের পাইকারি ব্যবসায় শুরু করতে পারেন। অনেক ক্ষেত্রে, বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, রাজনৈতিক অনুষ্ঠান, পিকনিক ইত্যাদির জন্য টি-শার্টের প্রয়োজন হয় যদি আপনি এই আদেশগুলি দিয়ে পোশাক থেকে টি-শার্ট তৈরি করেন। তারপরে আপনি স্বল্প ব্যয়ে ব্যবসা করতে পারবেন।

আরও পড়ুনঃ অল্প টাকায় ব্যবসায়ের আইডিয়া গুলো জেনে ব্যবসা শুরু করুন

শেয়ার করুনঃ

Comments are closed.




© All rights reserved © 2021 UddoktaLab
Design BY NewsTheme